Dhaka , Tuesday, 18 June 2024
www.dainikchalonbilerkotha.com

কক্সবাজারে কলেজ ছাত্রীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

তন্নী চৌধুরী বৈদ্যঘোনা এলাকার প্রেস ব্যবসায়ী নেপাল চৌধুরী ও এনজিও কর্মী শোভা চৌধুরীর মেয়ে এবং কক্সবাজার সিটি কলেজের অনার্স প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী। তার মরদেহ উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে বলে জানায় পুলিশ।

কক্সবাজার সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম জানান, স্থানীয়রা তন্নী চৌধুরীর নিজ বাড়িতে তার ঝুলন্ত মরদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে।

তিনি জানান, বিষয়টি প্রাথমিকভাবে আত্মহত্যার ঘটনা বলে নিশ্চিত হয়েছে পুলিশ। তবে সেটি কি প্রেমঘটিত, না অন্য কোনো কারণে পারিবারিক মনোমালিন্য ঘটিত তা নিশ্চিত হতে পারেনি পুলিশ।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, আজ মঙ্গলবার বিকালে তন্নী বাসায় একা ছিলেন। তার পিতা নেপাল চৌধুরী ব্যবসায়িক কাজে এবং মাতা শোভা চৌধুরী চাকরী সূত্রে বাড়ির বাইরে ছিলেন। বিকেলে তার মা একাধিকবার ফোন করেও তন্নী চৌধুরীর সাড়া না পেয়ে তিনি বিষয়টি স্থানীয়দের দেখতে বলেন। পরে স্থানীয়রা তার বাড়িতে ঝুলন্ত মরদেহ দেখতে পায়।

উল্লেখ্য, এর আগে গত মাসের শুরুতে খুরুশকুল আশ্রয়ণ প্রকল্পে এক বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী যুবক এবং গত ফেব্রুয়ারিতে ঝিলংজায় এক গৃহবধূ একই কায়দায় আত্মহত্যা করে।

এছাড়া গত বছরের আগস্টে কক্সবাজার হোটেল-মোটেল জোনের আবাসিক হোটেলে গলায় ফাঁস লাগিয়ে ৬ দিনে ৩ জনের আত্মহত্যার ঘটনা ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করে।

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

কক্সবাজারে কলেজ ছাত্রীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

আপডেটের সময় 12:17 am, Wednesday, 30 August 2023

তন্নী চৌধুরী বৈদ্যঘোনা এলাকার প্রেস ব্যবসায়ী নেপাল চৌধুরী ও এনজিও কর্মী শোভা চৌধুরীর মেয়ে এবং কক্সবাজার সিটি কলেজের অনার্স প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী। তার মরদেহ উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে বলে জানায় পুলিশ।

কক্সবাজার সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম জানান, স্থানীয়রা তন্নী চৌধুরীর নিজ বাড়িতে তার ঝুলন্ত মরদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে।

তিনি জানান, বিষয়টি প্রাথমিকভাবে আত্মহত্যার ঘটনা বলে নিশ্চিত হয়েছে পুলিশ। তবে সেটি কি প্রেমঘটিত, না অন্য কোনো কারণে পারিবারিক মনোমালিন্য ঘটিত তা নিশ্চিত হতে পারেনি পুলিশ।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, আজ মঙ্গলবার বিকালে তন্নী বাসায় একা ছিলেন। তার পিতা নেপাল চৌধুরী ব্যবসায়িক কাজে এবং মাতা শোভা চৌধুরী চাকরী সূত্রে বাড়ির বাইরে ছিলেন। বিকেলে তার মা একাধিকবার ফোন করেও তন্নী চৌধুরীর সাড়া না পেয়ে তিনি বিষয়টি স্থানীয়দের দেখতে বলেন। পরে স্থানীয়রা তার বাড়িতে ঝুলন্ত মরদেহ দেখতে পায়।

উল্লেখ্য, এর আগে গত মাসের শুরুতে খুরুশকুল আশ্রয়ণ প্রকল্পে এক বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী যুবক এবং গত ফেব্রুয়ারিতে ঝিলংজায় এক গৃহবধূ একই কায়দায় আত্মহত্যা করে।

এছাড়া গত বছরের আগস্টে কক্সবাজার হোটেল-মোটেল জোনের আবাসিক হোটেলে গলায় ফাঁস লাগিয়ে ৬ দিনে ৩ জনের আত্মহত্যার ঘটনা ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করে।