Dhaka , Saturday, 13 July 2024
www.dainikchalonbilerkotha.com

বগুড়া-৪ আসনে জামানত হারালেন হিরো আলম

 

নিউজ ডেস্ক দৈনিক চলনবিলের কথা

 

দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে বগুড়া-৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে জামানত হারিয়েছেন আলোচিত ইউটিউবার আশরাফুল হোসেন আলম ওরফে হিরো আলম।

গতকাল রোববার রাতে রিটার্নিং কর্মকর্তা ও বগুড়ার জেলা প্রশাসক সাইফুল ইসলাম নির্বাচনের বেসরকারি ফলাফল ঘোষণার পর বিষয়টি নিশ্চিত হয়।

নির্বাচন কমিশনের বিধিমালা অনুযায়ী জামানত রক্ষা করতে মোট বৈধ ভোটের আট ভাগের এক ভাগ থেকে অন্তত একটি ভোট বেশি পেতে হবে। সে অনুযায়ী বগুড়া-৪ আসনে ৯৩ হাজার ৭৪৯টি বৈধ ভোট পড়ায় জামানত রক্ষা করতে হলে প্রার্থীকে পেতে হবে ১১ হাজার ৭১৯ ভোট। সেখানে হিরো আলম ডাব প্রতীকে পেয়েছেন ২ হাজার ১৭৫ ভোট।

বগুড়া-৪ আসনে প্রার্থী ছিলেন ৬ জন। হিরো আলম ছাড়াও এ আসন থেকে ৮২৬ ভোট পেয়ে জামানত হারিয়েছেন জাতীয় পার্টির লাঙ্গল প্রতীকের শাহীন মোস্তফা কামাল। এ ছাড়া ট্রাক প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী মুশফিকুর রহমান ৬ হাজার ১৭৮ ভোট এবং গণতন্ত্রী পার্টির মনজুরুল ইসলাম কবুতর প্রতীকে ১ হাজার ১৯৫ ভোট পেয়ে জামানত হারিয়েছেন।

এ আসনে জেলা জাসদের সভাপতি রেজাউল করিম তানসেন নৌকা প্রতীকে ৪২ হাজার ৭৫৭ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য ও ঈগল প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী ডা. জিয়াউল হক মোল্লা পেয়েছেন ৪০ হাজার ৬১৮ ভোট।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এই আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে সিংহ প্রতীকে অংশ নিয়েছিলেন হিরো আলম। সেবার নির্বাচনের দিন কারচুপি ও নির্বাচন কমিশনের প্রতি অনাস্থা জানিয়ে ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন তিনি। হিরো আলম ২০২৩ সালের ১ ফেব্রুয়ারি বগুড়া-৪ ও বগুড়া-৬ আসনের উপনির্বাচনে একতারা প্রতীকে স্বতন্ত্র প্রার্থী ছিলেন। এর মধ্যে বগুড়া-৪ আসনে হিরো আলম পেয়েছিলেন ১৯ হাজার ৫৭১ ভোট। আর রেজাউল করিম তানসেন নৌকা প্রতীকে ২০ হাজার ৪০৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছিলেন।

বগুড়া-৪ আসনে জামানত হারালেন হিরো আলম

আপডেটের সময় 03:28 pm, Monday, 8 January 2024

 

নিউজ ডেস্ক দৈনিক চলনবিলের কথা

 

দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে বগুড়া-৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে জামানত হারিয়েছেন আলোচিত ইউটিউবার আশরাফুল হোসেন আলম ওরফে হিরো আলম।

গতকাল রোববার রাতে রিটার্নিং কর্মকর্তা ও বগুড়ার জেলা প্রশাসক সাইফুল ইসলাম নির্বাচনের বেসরকারি ফলাফল ঘোষণার পর বিষয়টি নিশ্চিত হয়।

নির্বাচন কমিশনের বিধিমালা অনুযায়ী জামানত রক্ষা করতে মোট বৈধ ভোটের আট ভাগের এক ভাগ থেকে অন্তত একটি ভোট বেশি পেতে হবে। সে অনুযায়ী বগুড়া-৪ আসনে ৯৩ হাজার ৭৪৯টি বৈধ ভোট পড়ায় জামানত রক্ষা করতে হলে প্রার্থীকে পেতে হবে ১১ হাজার ৭১৯ ভোট। সেখানে হিরো আলম ডাব প্রতীকে পেয়েছেন ২ হাজার ১৭৫ ভোট।

বগুড়া-৪ আসনে প্রার্থী ছিলেন ৬ জন। হিরো আলম ছাড়াও এ আসন থেকে ৮২৬ ভোট পেয়ে জামানত হারিয়েছেন জাতীয় পার্টির লাঙ্গল প্রতীকের শাহীন মোস্তফা কামাল। এ ছাড়া ট্রাক প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী মুশফিকুর রহমান ৬ হাজার ১৭৮ ভোট এবং গণতন্ত্রী পার্টির মনজুরুল ইসলাম কবুতর প্রতীকে ১ হাজার ১৯৫ ভোট পেয়ে জামানত হারিয়েছেন।

এ আসনে জেলা জাসদের সভাপতি রেজাউল করিম তানসেন নৌকা প্রতীকে ৪২ হাজার ৭৫৭ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য ও ঈগল প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী ডা. জিয়াউল হক মোল্লা পেয়েছেন ৪০ হাজার ৬১৮ ভোট।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এই আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে সিংহ প্রতীকে অংশ নিয়েছিলেন হিরো আলম। সেবার নির্বাচনের দিন কারচুপি ও নির্বাচন কমিশনের প্রতি অনাস্থা জানিয়ে ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন তিনি। হিরো আলম ২০২৩ সালের ১ ফেব্রুয়ারি বগুড়া-৪ ও বগুড়া-৬ আসনের উপনির্বাচনে একতারা প্রতীকে স্বতন্ত্র প্রার্থী ছিলেন। এর মধ্যে বগুড়া-৪ আসনে হিরো আলম পেয়েছিলেন ১৯ হাজার ৫৭১ ভোট। আর রেজাউল করিম তানসেন নৌকা প্রতীকে ২০ হাজার ৪০৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছিলেন।