Dhaka , Sunday, 21 April 2024
www.dainikchalonbilerkotha.com

ভাঙ্গুড়ায় ফুল হাতে শহীদ মিনারে মানুষের ঢল

পাবনার ভাঙ্গুড়ায় যথাযোগ্য মর্যাদায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপিত হয়েছে। দিবসটি  উপলক্ষে আজ বুধবার স্থানীয় প্রশাসন,আওয়ামী লীগ ও বিএনপিসহ বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন নানা কর্মসূচি পালন করে। কর্মসূচির মধ্যে ছিল- শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ, শোভাযাত্রা, চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, আলোচনাসভা ও দোয়া মাহফিল।দিবসের প্রথম প্রহরে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন পাবনা-৩ আসনের সংসদ সদস্য মো.মকবুল হোসেন,উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো.বাকি বিল্লাহ, পৌর মেয়র মো.গোলাম হাসনাইন রাসেল,উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. আরাফাত হোসেন,থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.নাজমুল হক প্রমুখ।

রাতে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ শ্রদ্ধা জানালেও সকাল গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে হাজারো মানুষের ঢল নামে শহীদ মিনারে। বুকে কালো ব্যাজ, কালো পতাকা, ব্যানার ও হাতে ফুল নিয়ে সবাই ধীর পায়ে এগিয়ে যান শহীদ মিনারের দিকে।শুরু হয় শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন। আবার অনেকের শোকের আবহ ধরে রাখতে কালো পাঞ্জাবি, কালো শাড়ি পরে আসেন শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে।

অন্যদিকে শহীদ মিনার থেকে মৃদু আওয়াজে বাজছিল- ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি/আমি কি ভুলিতে পারি…এই দেশাত্মবোধক গানটি। ধীরে ধীরে মানুষের উপস্থিতি বাড়ায় ফুলে ফুলে ভরে যেতে থাকে শহীদ মিনারের মূল বেদী।

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

ভাঙ্গুড়ায় ফুল হাতে শহীদ মিনারে মানুষের ঢল

আপডেটের সময় 12:56 pm, Wednesday, 21 February 2024

পাবনার ভাঙ্গুড়ায় যথাযোগ্য মর্যাদায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপিত হয়েছে। দিবসটি  উপলক্ষে আজ বুধবার স্থানীয় প্রশাসন,আওয়ামী লীগ ও বিএনপিসহ বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন নানা কর্মসূচি পালন করে। কর্মসূচির মধ্যে ছিল- শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ, শোভাযাত্রা, চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, আলোচনাসভা ও দোয়া মাহফিল।দিবসের প্রথম প্রহরে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন পাবনা-৩ আসনের সংসদ সদস্য মো.মকবুল হোসেন,উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো.বাকি বিল্লাহ, পৌর মেয়র মো.গোলাম হাসনাইন রাসেল,উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. আরাফাত হোসেন,থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.নাজমুল হক প্রমুখ।

রাতে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ শ্রদ্ধা জানালেও সকাল গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে হাজারো মানুষের ঢল নামে শহীদ মিনারে। বুকে কালো ব্যাজ, কালো পতাকা, ব্যানার ও হাতে ফুল নিয়ে সবাই ধীর পায়ে এগিয়ে যান শহীদ মিনারের দিকে।শুরু হয় শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন। আবার অনেকের শোকের আবহ ধরে রাখতে কালো পাঞ্জাবি, কালো শাড়ি পরে আসেন শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে।

অন্যদিকে শহীদ মিনার থেকে মৃদু আওয়াজে বাজছিল- ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি/আমি কি ভুলিতে পারি…এই দেশাত্মবোধক গানটি। ধীরে ধীরে মানুষের উপস্থিতি বাড়ায় ফুলে ফুলে ভরে যেতে থাকে শহীদ মিনারের মূল বেদী।