Dhaka , Tuesday, 18 June 2024
www.dainikchalonbilerkotha.com

ভাঙ্গুড়ায় স্ত্রীর মৃত্যুশোকে স্বামীর মৃত্যু, পাশাপাশি দাফন সম্পন্ন

 

নিউজ ডেস্ক দৈনিক চলনবিলের কথা

 

পাবনার ভাঙ্গুড়ায় প্রায় আধা ঘন্টার ব্যবধানে মারা যাওয়া সরোয়ার হোসেন (৩৫) ও লাইলি খাতুন (৩০) দম্পতির মরদেহ দুটি পাশাপাশি স্থানীয় কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

বুধবার (১৩ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে জানাযার নামাজ শেষে স্থানীয় ভেড়ামারা কবরস্থানে তাদের দাফন সম্পন্ন হয়।

এর আগে গত মঙ্গলবার (১২ ডিসেম্বর) বিকেলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান স্ত্রী লাইলি খাতুন। এর প্রায় আধা ঘণ্টার মধ্যে স্ত্রীর মৃত্যুর শোক সইতে না পেরে মারা যায় স্বামী সরোয়ারও।

তাদের বাড়ি ভাঙ্গুড়া উপজেলার পার-ভাঙ্গুড়া ইউনিয়নের চক্রপাড়া গ্রামে। আট বছর বয়সী একটি ছেলে সন্তান রয়েছে তাদের। হৃদয় বিদারক এমন মৃত্যুর খবরে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বেশ কয়েক দিন ধরে হার্ডের অসুখে ভুগছিলেন স্ত্রী লাইলি খাতুন। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে লাইলির শারীরিক অসুস্থতা বৃদ্ধি পেলে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি করা হয়। পরে ঐ দিন বিকেলেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাসপাতালে মারা যান লাইলি। স্ত্রীর মৃত্যুর শোক সইতে না পেরে প্রায় আধা ঘণ্টার মধ্যেই মারা যান স্বামী সরোয়ারও।

এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক ফাহমিদা সুলতানা বলেন, ‘স্ত্রীর মৃত্যু দেখে স্বামীর কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট হয়ে থাকতে পারে।’

উপজেলার পার- ভাঙ্গুড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব হেদায়েতুল হক বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, প্রায় ৩০ মিনিট সময়ের ব্যবধানে স্বামী-স্ত্রীর এমন মৃত্যুর বিষয়টি খুবই দুঃখ জনক।

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

ভাঙ্গুড়ায় স্ত্রীর মৃত্যুশোকে স্বামীর মৃত্যু, পাশাপাশি দাফন সম্পন্ন

আপডেটের সময় 08:27 pm, Wednesday, 13 December 2023

 

নিউজ ডেস্ক দৈনিক চলনবিলের কথা

 

পাবনার ভাঙ্গুড়ায় প্রায় আধা ঘন্টার ব্যবধানে মারা যাওয়া সরোয়ার হোসেন (৩৫) ও লাইলি খাতুন (৩০) দম্পতির মরদেহ দুটি পাশাপাশি স্থানীয় কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

বুধবার (১৩ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে জানাযার নামাজ শেষে স্থানীয় ভেড়ামারা কবরস্থানে তাদের দাফন সম্পন্ন হয়।

এর আগে গত মঙ্গলবার (১২ ডিসেম্বর) বিকেলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান স্ত্রী লাইলি খাতুন। এর প্রায় আধা ঘণ্টার মধ্যে স্ত্রীর মৃত্যুর শোক সইতে না পেরে মারা যায় স্বামী সরোয়ারও।

তাদের বাড়ি ভাঙ্গুড়া উপজেলার পার-ভাঙ্গুড়া ইউনিয়নের চক্রপাড়া গ্রামে। আট বছর বয়সী একটি ছেলে সন্তান রয়েছে তাদের। হৃদয় বিদারক এমন মৃত্যুর খবরে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বেশ কয়েক দিন ধরে হার্ডের অসুখে ভুগছিলেন স্ত্রী লাইলি খাতুন। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে লাইলির শারীরিক অসুস্থতা বৃদ্ধি পেলে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি করা হয়। পরে ঐ দিন বিকেলেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাসপাতালে মারা যান লাইলি। স্ত্রীর মৃত্যুর শোক সইতে না পেরে প্রায় আধা ঘণ্টার মধ্যেই মারা যান স্বামী সরোয়ারও।

এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক ফাহমিদা সুলতানা বলেন, ‘স্ত্রীর মৃত্যু দেখে স্বামীর কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট হয়ে থাকতে পারে।’

উপজেলার পার- ভাঙ্গুড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব হেদায়েতুল হক বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, প্রায় ৩০ মিনিট সময়ের ব্যবধানে স্বামী-স্ত্রীর এমন মৃত্যুর বিষয়টি খুবই দুঃখ জনক।