Dhaka , Tuesday, 18 June 2024
www.dainikchalonbilerkotha.com

যৌতুকের টাকা না পেয়ে স্ত্রীকে শ্বাসরোধ করে হত্যার অভিযোগ

 

গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ

গাইবান্ধা সদর উপজেলায় যৌতুকের টাকা না দেওয়ায় কৃঞ্চা রানী (১৯) কে শ্বাসরোধ করে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্বামী প্রদীপ চন্দ্র দাসের বিরুদ্ধে। মেয়েকে হত্যার অভিযোগে সোমবার (৩ সেপ্টেম্বর) মৃত কৃঞ্চা রানীর বাবা রবীন্দ্র নাথ চন্দ্র দাস বাদী হয়ে থানায় মামলা করেন।

এর আগে (২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে উপজেলার বাদিয়াখালী ইউনিয়নের চুনিয়াকান্দি গ্রামের স্বামী প্রদীপ কুমারে বাড়ি থেকে কৃঞ্চা রানীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

মামলার এজাহারে জানা যায়, ২০২১ সালের ৮ জুন উপজেলার চুনিয়াকান্দি গ্রামের মৃত ফকির চন্দ্র দাসের ছেলে শ্রী প্রদীপ কুমারের সঙ্গে পলাশবাড়ি উপজেলার ঘোড়াবান্দা গ্রামের রবীন্দ্র নাথ চন্দ্র দাসের মেয়ে কৃঞ্চা রানীর বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে বিভিন্ন সময় যৌতুকের দাবি করে আসছে প্রদীপ। কয়েকবার টাকা দেওয়ার পরও বারবার টাকা দাবি করছিলেন তিনি। এব্যাপারে একাধিকবার স্থানীয়ভাবে ঘরোয়া সালিশ বৈঠকও হয়। এমতাবস্থায় রোববার রাত সাড়ে ১২ টার দিকে কৃঞ্চা রানী মারা গেছে এক প্রতিবেশির কাছ থেকে খবর পান তার পরিবার।

নিহতের বাবা রবীন্দ্র নাথ চন্দ্র দাস বলেন, প্রদীপ যৌতুকের টাকা চেয়ে প্রায়ই আমার মেয়েকে মারধর করত। গত শনিবার গভীর রাতে তাকে আবারও মারধর করে সে। পরে জানতে পারি আমার মেয়ে মারা গেছে। তার গলায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাকে গলাটিপে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। আমরা এর সুষ্ঠু বিচার চাই।

এ বিষয়ে গাইবান্ধা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) ওয়াহেদুল ইসলাম বলেন, কৃঞ্চা রানীকে হত্যার অভিযোগে মামলা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

 

ট্যাগ:

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

যৌতুকের টাকা না পেয়ে স্ত্রীকে শ্বাসরোধ করে হত্যার অভিযোগ

আপডেটের সময় 08:43 pm, Monday, 3 October 2022

 

গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ

গাইবান্ধা সদর উপজেলায় যৌতুকের টাকা না দেওয়ায় কৃঞ্চা রানী (১৯) কে শ্বাসরোধ করে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্বামী প্রদীপ চন্দ্র দাসের বিরুদ্ধে। মেয়েকে হত্যার অভিযোগে সোমবার (৩ সেপ্টেম্বর) মৃত কৃঞ্চা রানীর বাবা রবীন্দ্র নাথ চন্দ্র দাস বাদী হয়ে থানায় মামলা করেন।

এর আগে (২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে উপজেলার বাদিয়াখালী ইউনিয়নের চুনিয়াকান্দি গ্রামের স্বামী প্রদীপ কুমারে বাড়ি থেকে কৃঞ্চা রানীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

মামলার এজাহারে জানা যায়, ২০২১ সালের ৮ জুন উপজেলার চুনিয়াকান্দি গ্রামের মৃত ফকির চন্দ্র দাসের ছেলে শ্রী প্রদীপ কুমারের সঙ্গে পলাশবাড়ি উপজেলার ঘোড়াবান্দা গ্রামের রবীন্দ্র নাথ চন্দ্র দাসের মেয়ে কৃঞ্চা রানীর বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে বিভিন্ন সময় যৌতুকের দাবি করে আসছে প্রদীপ। কয়েকবার টাকা দেওয়ার পরও বারবার টাকা দাবি করছিলেন তিনি। এব্যাপারে একাধিকবার স্থানীয়ভাবে ঘরোয়া সালিশ বৈঠকও হয়। এমতাবস্থায় রোববার রাত সাড়ে ১২ টার দিকে কৃঞ্চা রানী মারা গেছে এক প্রতিবেশির কাছ থেকে খবর পান তার পরিবার।

নিহতের বাবা রবীন্দ্র নাথ চন্দ্র দাস বলেন, প্রদীপ যৌতুকের টাকা চেয়ে প্রায়ই আমার মেয়েকে মারধর করত। গত শনিবার গভীর রাতে তাকে আবারও মারধর করে সে। পরে জানতে পারি আমার মেয়ে মারা গেছে। তার গলায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাকে গলাটিপে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। আমরা এর সুষ্ঠু বিচার চাই।

এ বিষয়ে গাইবান্ধা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) ওয়াহেদুল ইসলাম বলেন, কৃঞ্চা রানীকে হত্যার অভিযোগে মামলা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।