Logo
শিরোনাম
আসন্ন ১নং চরজব্বার ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হতে চান মোঃ অলি উদ্দিন। কবিতার শিরোনাম নবীর আগমনে কবি সৈয়দুল ইসলাম প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে শ্যামপুর মাদ্রাসায় বৃক্ষরোপণ গণসংযোগে ব্যাস্ত চেয়ারম্যান প্রার্থী সাইদুর রহমান সুবর্ণচরে মহিলা মেম্বার প্রার্থী বিলকিস সুলতানা প্রচার প্রচারণায় এগিয়ে পাবনায় সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনায় জামান ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মালিক সুমনের বিরুদ্ধে মামলা সিংড়ায় বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে শিক্ষার্থীর মৃত্যু ভাঙ্গুড়ায় বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা ক্যাম্পেইনের উদ্বোধন ভাঙ্গুড়ায় কোভিড-১৯ পরবর্তী প্রাথমিক বিদ্যালয় পুনরায় চালুকরণের লক্ষ্যে প্রস্তুতি সভা ভাঙ্গুড়ায় ওয়াশ ব্লক নির্মাণ কাজের উদ্ধোধন ভক্তদের ভালোবাসায় সিক্ত হলেন পরীমনি ভাঙ্গুড়ায় বিএনপির ৪৩তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন করোনা কালীন হেল্প সেন্টারের উদ্বোধন হন্তারক ★★ -পিএম. জাহিদ জীবন যেখানে যেমন পদ্মা সেতুর স্প্যানে ফেরির মাস্তুলের ‘ধাক্কার’ খবর, পরির্দশনে যাচ্ছে একটি দল মহান নেতা ★★ফেরদৌসী খানম রীনা আমাদের দেশ একটি অসাম্প্রদায়িক দেশ খাদ্যমন্ত্রী মেঘ কন্যা চাঁদে ★ কবি হাবিবুর রহমান  চলনবিলে শাপলার সমাহার ভাঙ্গুড়া উপজেলায় জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে মতবিনিময় সভা

ববি শিক্ষার্থীদের জোর করে তুলে নিয়ে গেল স্থানীয় সন্ত্রাসী

ববি শিক্ষার্থীদের জোর করে তুলে নিয়ে গেল স্থানীয় সন্ত্রাসী

সাইফুদ্দিন, বিশেষ প্রতিনিধিঃ


বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (ববি) ৪ জন শিক্ষার্থীকে জোর পূর্বক তুলে নিয়ে গিয়েছিল বরিশালের স্থানীয় সন্ত্রাসী বাহিনী।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা হলেন, মৃত্তিকা ও পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী শুয়াইব ইসলাম স্মরণ, হিসাববিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী রাকিব মাহমুদ, ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী আনিকা সরকার সিথী এবং উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী সৈয়দা সানজিদা ফেরদৌস জেবা।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা জানান,বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ে ধর্ষণ বিরোধী প্রদীপ মিছিল করার সময় এক মোটরসাইকেল আরোহী মিছিলের মধ্যে মোটরসাইকেল ঢুকিয়ে দেয়। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত বিভাগের শিক্ষার্থী হাসিবুর রহমান হাসিব আহত হয় এবং তার হাতের একটি আঙ্গুল ভেঙে যায়। এরপর মোটরসাইকেল আরোহী ও তার সাথে থাকা একজনকে ক্যাম্পাসের দায়িত্বরত পুলিশ আটক করে। প্রদীপ মিছিল শেষ হওয়ার পর শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসের সামনে এলে ক্যাম্পাস থানার দায়িত্বরত পুলিশ দুইপক্ষকে নিয়ে আলোচনা করে তাদেরকে ছেড়ে দেয়।এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডির কিছু সদস্য উপস্থিত ছিলেন।
এরপর ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসের সামনে থেকে অটো না পেয়ে হাটতে হাটতে দপদপিয়া ব্রিজের উপর গেলে আনুমানিক রাত সাড়ে ৮ ঘটিকায় মোটরবাইকার ও তার সাঙ্গোপাঙ্গোরা তাদের আটক করে জোরপূর্বক রুপাতলি নিয়ে আটকে রাখে।এ সময় সন্ত্রাসীবাহিনীরা নারী দুই শিক্ষার্থীকে আজেবাজে ভাষায় গালিগালাজ করে এবং ছেলে শিক্ষার্থীদের শারীরিক ভাবে নির্যাতন করে।

এরপর এক নারী শিক্ষার্থী সন্ত্রাসীদের থেকে লুকিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ফেসবুক গ্রুপে তাদের আটকে রাখার বিষয়ে পোস্ট দেয় এবং রুপাতলিতে অবস্থানরত এক শিক্ষার্থীকে ফোন করে জানালে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা এসে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীদের উদ্ধার করে।এসময় সন্ত্রাসীরা তাদের প্রাণনাশের হুমকি দেয়। এ সময় দলে দলে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা রুপাতলি আসতে থাকে এবং সন্ত্রাসীদের আটক করে।এ সময় কয়েকজন সন্ত্রাসী তাদের মোটরসাইকেল ফেলে পালিয়ে যায়। পরে আটককৃত সন্ত্রাসীদের পুলিশে সোপর্দ করা হয়।

এসময় শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেন যে, এই ঘটনার ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. সুব্রত কুমার দাস কে ফোন করা হলে তিনি দায় এড়িয়ে যান এবং শিক্ষার্থীদের বাদী হয়ে মামলা করতে বলেন।তিনি সাফ জানিয়ে দেন যে, তিনি এই ব্যাপারে কোনো সাহায্য করতে পারবেন না।

অভিযোগের ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. সুব্রত কুমার দাস জানান, ”
এসব অভিযোগ ভিত্তিহীন। এমন কোন কথা আমি বলিনি। আমরা সবথেকে বেশি গুরুত্ব দিয়েছি শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার বিষয়ে। তারা যেখানেই সমস্যার সম্মুখীন হবে, আমরা তাদেরকে সাহায্য করব।

এ বিষয়ে এসআই মুনিম বলেন, ঘটনা স্থলেই আসামীদের ছেড়ে দেয়া হয়। কারণ তাদের বিরুদ্ধে কেউ মামলা করেনি। ভুক্তভোগীরা বলেছিলো প্রক্টর স্যার বাদী হয়ে মামলা করবে কিন্তু কেউ এখনো মামলা করেনি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Categories

Theme Created By SmartiTHost