Logo
শিরোনাম
ইফতার সামগ্রী বিতরণ করলেন “চিকনিকান্দী সেচ্ছাসেবক সংগঠন” কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে হাত পা বাঁধা অবস্থায় কৃষকের লাশ উদ্ধার কবি “নূর জাহান” এর কবিতা “বাঁজিছে দামামা”। কবি পি.এম.জাহিদের কবিতা “ক্ষমা করো” প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস এবার কেড়ে নিলো কুষ্টিয়ার কৃতি সন্তান ওসি রাজিব হোসাইন সুমনের প্রা কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় পুকুরে  ডুবে দুই শিশুর করুণ মৃত্যু এলাকায় শোকের ছায়া পাবনার সুজানগরে খয়রানে তিন ফসলি জমি দখল করে ব্যক্তিগত সড়ক নির্মাণের অভিযোগ। কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে ভিক্ষুককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ কবি মো নূরুজ্জামান সবুজের কবিতা লকডাউন দৈনিক মুক্ত আলো পত্রিকার লোগো নকল করে প্রতারণা করছে ফাহিম ফয়সাল রাণীশংকৈলে আবারো দুই জেএমবি”র সদস্য আটক রাণীশংকৈলে আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত দেশে করোনায় একদিনে রেকর্ড ৮৩ জনের মৃত্যু কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে কৃষকদের মাঝে বিনামূল্যে বীজ ও সার বিতরণ সাথিয়ায় মাদক ব্যবসায়ী ধর্ষন মামলায় গ্রেফতার। কুষ্টিয়ায় আ’লীগের দুগ্রুপের সংঘর্ষে আহত -১০ আটক ১৮ রাণীশংকৈলে শ্বশুরবাড়িতে জামাইয়ের ‘রহস্যজনক’ মৃত্যু সিংড়ায় আওয়ামী লীগ নেতার মাস্ক বিতরণ রাণীশংকৈলে বীর মুক্তিযোদ্ধার রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন সম্পন্ন চলন্ত ট্রেনে সন্তান প্রসব, নাম রাখা হলো ‘মিতালী’

আন্তর্জাতিক আলোকচিত্র প্রতিযোগিতায় সেরা রাজশাহীর হিমেলের ছবি

আন্তর্জাতিক আলোকচিত্র প্রতিযোগিতায় সেরা রাজশাহীর হিমেলের ছবি

 

নিজস্ব প্রতিবেদক দৈনিক  চলনবিলের কথা


আলোকচিত্র প্রতিযোগিতা ‘আগোরা’র ২০২০ সালের সেরা ছবির খেতার জিতেছে রাজশাহীর ফ্রিল্যান্সিং ফটোগ্রাফার হিমেল নবীর তোলা ছবি।

তার তোলা ঠেংগির প্রতিচ্ছায়ার দৃশ্য এবারের প্রতিযোগিতার ‘প্রতিচ্ছায়া’ থিমের সেরার খেতাব এনে দিয়েছে। মনোমুগ্ধকর এই ছবিটি ২০১৮ সালের শীতের কোনো এক বিকেলে চাঁপাইনবাবগঞ্জের রহনপুরের চোরাইল বিল থেকে তোলা।

আলোকচিত্রী হিমেল নবী নিজেই এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এর আগে আগোরা কর্তৃপক্ষ এক ই-মেইল বার্তায় হিমেল নবীকে বিষয়টি জানায়।

হিমেল নবী রাজশাহী নগরীর বোসপাড়া এলাকার আসাদুল্লাহ নাসিরের ছেলে। তিনি বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং ফটোগ্রাফার হিসেবে কাজ করছেন।

জানা যায়, স্পেনের বার্সেলোনায় ‘আগোরা’ প্রতিবছর বিভিন্ন বিষয়ের ওপর আলোকচিত্র প্রতিযোগিতার আয়োজন করে। প্রতিযোগিতায় এবারের বিষয় ছিল প্রতিচ্ছায়া। প্রতিযোগিতায় পৃথিবীর সেরা সেরা আলোকচিত্রী তাদের ১০ হাজারেরও বেশি ছবি জমা করেন।

সেখান থেকেই বিচারকমণ্ডলী সেরা ৫০টি ছবি নির্বাচন করেন। বিচারকদের নির্বাচিত সেই ৫০টি ছবি ছেড়ে দেয়া হয় অনলাইন ভোটের জন্য। অনলাইনে আলোকচিত্রীদের ভোটে পাঁচটি ছবি নির্বাচিত হয় চূড়ান্ত পর্বের জন্য। চূড়ান্ত পর্বে এসে হিমেল নবীর ছবিটিই সর্বাধিক ভোটে বিজয়ী হয়।

হিমেল নবী বলেন, আমার ফটোগ্রাফির শুরুটা হয় শখের বসে। তারপর আস্তে আস্তে ছবি তোলাটা নেশায় পরিণত হয়ে যায়। ২০১৫ সাল থেকে ছবি তোলা শুরু করি।

প্রথমদিকে সব ধরনের ছবি তোলা হতো। এরপর হঠাৎ করে পাখি, ন্যাচার আর ওয়াইল্ড লাইফের ছবি তুলতে ভালো লাগতে শুরু হয়। ২০১৮ সালে ঠেংগি এই ছবিটি তুলি।

হাজারও ছবির মধ্যে নিজের ছবিটি সেরাদের সেরা হওয়ার অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে হিমেল নবী বলেন, আন্তর্জাতিক পুরস্কার পাওয়ায় অনেক বেশি আনন্দিত, যা ভাষায় প্রকাশ করার মতো না।

তিনি বলেন, একটু হলেও দেশের জন্য কিছু করতে পেরেছি। যার জন্য আমার ফটোগ্রাফি জীবনটা একটু হলেও সার্থক মনে হচ্ছে। তবে অর্জন আমাকে ভালো কিছু করতে উৎসাহ দিয়ে যাবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Categories

Theme Created By ThemesWala.Com