Logo
শিরোনাম
রেকর্ড ২৩১ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৩৩২১ নীলকষ্টের পরিক্রমা ৩ -পিএম. জাহিদ জনগুরুত্বপুর্ণ রাস্তার বেহাল দশাঃসংস্কার চাই। ইসরাইলের বর্বরতার বিরুদ্ধে স্বরচিত কবিতা পাঠের আসর সিংড়ায় রোজিনা ইসলামের মুক্তির দাবিতে সাংবাদিকদের মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা রমানাথপুরসহ কয়েকটি গ্রামের অর্ধশত পরিবার পেলো  ঈদ সামগ্রী উপহার কুয়াবাসী গ্রামের ১০০ পরিবার পেলো ঈদ উপহার কবিতা ভালোবাসার লাল গোলাপ কবি সাজিয়া আফরিন কবি -পিএম. জাহিদের ধারাবাহিক সিরিজ কবিতা ” নীলকষ্টের পরিক্রমা ২” আমি ছুয়ে যাই শিরোনামে কবি হাবিবুর রহমানের লেখা কবিতা কবি সাজিয়া আফরিনের কবিতা “এইতো জীবন “। কবি পি এম জাহিদের ধারাবাহিক কবিতা “নীলকষ্ঠের পরিক্রমা-০১” নোবেলের ‘মেহেরবান’ আসছে ২৫ রোজার পর কবি মোঃ আমিনুল ইসলাম মিন্টুর সমসাময়িক পরিস্থিতির কবিতা ” সমাজ এখন জিম্মি “। পাবনায়১২ কেজি গাঁজাসহ এসআই ওছিম গ্রেপ্তার। কুষ্টিয়ার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থানা পরিদর্শন করলেন এসপি খাইরুল আলম কুষ্টিয়ায় জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে অবরুদ্ধ কৃষক সৈয়দ বেলাল হোসেন পাবেল এর নেতৃত্বে ধান কাটলো পটুয়াখালী জেলা ছাত্র লীগ সাতদিনেই ভেঙ্গে গেলো শ্রাবন্তীর ভালোবাসার সংসার ভোলায় এক মাসে ডায়রিয়া আক্রান্ত ৫ হাজারের অধিক ॥ পানিতে মিলেছে ডায়রিয়া জীবানু

আন্তর্জাতিক আলোকচিত্র প্রতিযোগিতায় সেরা রাজশাহীর হিমেলের ছবি

আন্তর্জাতিক আলোকচিত্র প্রতিযোগিতায় সেরা রাজশাহীর হিমেলের ছবি

 

নিজস্ব প্রতিবেদক দৈনিক  চলনবিলের কথা


আলোকচিত্র প্রতিযোগিতা ‘আগোরা’র ২০২০ সালের সেরা ছবির খেতার জিতেছে রাজশাহীর ফ্রিল্যান্সিং ফটোগ্রাফার হিমেল নবীর তোলা ছবি।

তার তোলা ঠেংগির প্রতিচ্ছায়ার দৃশ্য এবারের প্রতিযোগিতার ‘প্রতিচ্ছায়া’ থিমের সেরার খেতাব এনে দিয়েছে। মনোমুগ্ধকর এই ছবিটি ২০১৮ সালের শীতের কোনো এক বিকেলে চাঁপাইনবাবগঞ্জের রহনপুরের চোরাইল বিল থেকে তোলা।

আলোকচিত্রী হিমেল নবী নিজেই এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এর আগে আগোরা কর্তৃপক্ষ এক ই-মেইল বার্তায় হিমেল নবীকে বিষয়টি জানায়।

হিমেল নবী রাজশাহী নগরীর বোসপাড়া এলাকার আসাদুল্লাহ নাসিরের ছেলে। তিনি বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং ফটোগ্রাফার হিসেবে কাজ করছেন।

জানা যায়, স্পেনের বার্সেলোনায় ‘আগোরা’ প্রতিবছর বিভিন্ন বিষয়ের ওপর আলোকচিত্র প্রতিযোগিতার আয়োজন করে। প্রতিযোগিতায় এবারের বিষয় ছিল প্রতিচ্ছায়া। প্রতিযোগিতায় পৃথিবীর সেরা সেরা আলোকচিত্রী তাদের ১০ হাজারেরও বেশি ছবি জমা করেন।

সেখান থেকেই বিচারকমণ্ডলী সেরা ৫০টি ছবি নির্বাচন করেন। বিচারকদের নির্বাচিত সেই ৫০টি ছবি ছেড়ে দেয়া হয় অনলাইন ভোটের জন্য। অনলাইনে আলোকচিত্রীদের ভোটে পাঁচটি ছবি নির্বাচিত হয় চূড়ান্ত পর্বের জন্য। চূড়ান্ত পর্বে এসে হিমেল নবীর ছবিটিই সর্বাধিক ভোটে বিজয়ী হয়।

হিমেল নবী বলেন, আমার ফটোগ্রাফির শুরুটা হয় শখের বসে। তারপর আস্তে আস্তে ছবি তোলাটা নেশায় পরিণত হয়ে যায়। ২০১৫ সাল থেকে ছবি তোলা শুরু করি।

প্রথমদিকে সব ধরনের ছবি তোলা হতো। এরপর হঠাৎ করে পাখি, ন্যাচার আর ওয়াইল্ড লাইফের ছবি তুলতে ভালো লাগতে শুরু হয়। ২০১৮ সালে ঠেংগি এই ছবিটি তুলি।

হাজারও ছবির মধ্যে নিজের ছবিটি সেরাদের সেরা হওয়ার অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে হিমেল নবী বলেন, আন্তর্জাতিক পুরস্কার পাওয়ায় অনেক বেশি আনন্দিত, যা ভাষায় প্রকাশ করার মতো না।

তিনি বলেন, একটু হলেও দেশের জন্য কিছু করতে পেরেছি। যার জন্য আমার ফটোগ্রাফি জীবনটা একটু হলেও সার্থক মনে হচ্ছে। তবে অর্জন আমাকে ভালো কিছু করতে উৎসাহ দিয়ে যাবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Categories

Theme Created By ThemesWala.Com