Logo
শিরোনাম
ছোটবেলায় বিয়ে করে ভুল করেছি; অভিনেত্রী মিথিলা সিংড়ায় ২৫ দিন পর কবর থেকে সরকারি কর্মচারীর লাশ উত্তোলন কাতার বিশ্বকাপে প্রথম নারী রেফারি; সুযোগ পেলেন ব্রাজিলের নেউসা বাক পাবনায় পুলিশ কন্সটেবলের উদ্যেগে চিকিৎসা পেলেন ভারসাম্যহীন যুবক নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতে পাবনায় সেমিনার অনুষ্ঠিত বিএনপি থেকে পদত্যাগ করলেন সাক্কু চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে পাঠদানের সময় খুলে পড়ল সিলিং ফ্যান পাবনায় চালকের মুক্তির দাবীতে সড়কে শ্রমিকদের বিক্ষোভ অভিনেত্রী জয়া আহসানের হাতে আবারো উঠল সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার। মালিকানা কিনে বেকহামের ক্লাবে যাবেন মেসি! আরো বাড়তে পারে ভাপসা গরম ১৯ বছর পর গাজীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন আজ ইউক্রেনকে ‘প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম’ পাঠাল ইসরায়েল ভারতে শিব মন্দিরের দাবি ওঠায় তাজমহলের সেই ২২ ঘরের ছবি প্রকাশ আয়াক্সের ব্রাজিলিয়ান তারকা অ্যান্থনিকে চায় তিন ক্লাব আটঘরিয়ায় বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল অনুষ্ঠিত কোভিড নিয়ন্ত্রণে বাংলাদেশ সারা বিশ্বের মধ্যে ৫ম: স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক পাবনায় ১৬ দফা দাবিতে আদিবাসীদের জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি প্রদান পাবনায় স্মার্ট ফোনের অপব্যবহার করায় ১২ কিশোর আটক; পুলিশের প্রশংসা নোয়াখালীতে প্রেমিকের হাত ধরে এক মাসে ১৩ ছাত্রীর পলায়ন

রাণীশংকৈলে স্বাধীনতা যুদ্ধের পর থেকেই ধ্বংসের পথে রাজা টংকনার্থের রাজবাড়িটি

রাণীশংকৈলে স্বাধীনতা যুদ্ধের পর থেকেই ধ্বংসের পথে রাজা টংকনার্থের রাজবাড়িটি

মাহাবুব আলম রাণীশংকৈল ঠাকুরগাঁও সংবাদদাতা


ঠাকুরগাঁওয়ে রাণীশংকৈল উপজেলার বাচোর ইউনিয়নে কুলিক নদীর তীরে অবস্থিত মালদুয়ার জামিদার টংক নাথের রাজবাড়ি। যা ১৯১৫ সালে প্রতিষ্ঠা করেন। টংকনাথের পিতার নাম বুদ্ধি নাথ চৌধূরী,বুদ্ধিনাথ চৌধূরী ছিলেন মৈথিলি ব্রাক্ষণ এবং কাতিহারের ঘোষ বাগোয়ালা বংশীয় জমিদারের শ্যামরাই মন্দিরের সেবায়েত।

নিঃসন্তান বৃদ্ধগোয়ালা জমিদার কাশিবাসে যাওয়ার সময় সমস্ত জমিদারি সেবায়েতের তত্ত্বাবধানে রেখে যান এবং তাম্রপাতে দলিল করে যান । তিনি কাশি থেকে ফিরে না এলে শ্যামরাই মন্দিরের সেবায়েত এই জমিদারির মালিক হবেন। পরে বৃদ্ধ জমিদার ফিরে না আসার কারণে বুদ্ধিনাথ চৌধুরী জমিদারী পেয়ে যান। তবে অনেকে মনে করেন এই ঘটনা বুদ্ধিনাথ চৌধুরীর দু-এক পুরুষ পূর্বেরও হতে পারে।

রাজবাড়ি নির্মাণের কাজ বুদ্ধিনাথ চৌধূরী শুরু করেলও শেষ করতে পারেনি । এটির কাজ সমাপ্ত করেন রাজা টংকনাথ। বৃটিশ সরকারের কাছে টংকনার্থ রাজা উপাধী পান। উনবিংশ শতাব্দীর শেষভাগে রাজ বাড়িটি নির্মিত হয়। স্বাধীনতা যুদ্ধের পর পর থেকেই ধ্বংসস্তুপে পরিণত হয়় রাজবাড়িটি। যা কালের বিবর্তনে হারিয়ে যাচ্ছে ইতিহাসের পাতা থেকে । অযত্নে অবহেলায় পড়ে রয়েছে রাজবাড়ীটি সংস্কারের অভাবে এখন ধ্বংসস্তূপ প্রায়। স্থানীয় সুশীল সমাজের দাবী রাজা টংকনাথের ইতিহাস নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে এটির সংস্কার ও সংরক্ষণ করা অতি জরুরী।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Categories

Theme Created By SmartiTHost