Logo
শিরোনাম
কবিতা স্বপ্নের পদ্মা কবি বনশ্রী বড়ুয়া মালয়েশিয়ার বিপক্ষে সিরিজ জিতল বাংলাদেশের মেয়েরা কবিতা মেঠো রোদ্দু কবি রবীন্দ্রনাথ হালদার জননেতা শাহে আলম এমপি’র যুক্তরাষ্ট্রে আগমণ পাবনায় একসঙ্গে ৩ সন্তানের জন্ম; নাম পদ্মা-সেতু-উদ্বোধন পদ্মা সেতু পার হওয়া প্রথম লেডি বাইকার রুবায়েত পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে পাবনায় বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা আজ ২৫শে জুন ২০২২ উদ্বোধন হলো স্বপ্নের পদ্মাসেতু সারাদেশের বেশিরভাগ ক্রিকেট ব্যাটের চাহিদা পূরণ করছে যশোর না ফেরার দেশে সাবেক মিস ব্রাজিল গ্লেসি বহুল আলোচিত ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার ম্যাচ হবে ব্রাজিলে পাবনায় আওয়ামী লীগের ৭৩তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত পাবনার ভাঙ্গুড়ায় কৃষক মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত পাবনায় টাইলসের এক্সক্লুসিভ শো-রুম খুলেছে সানিটা খাবার ও টাকা নিয়ে বানভাসিদের কাছে নায়ক-নায়িকারা সারা দেশে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চলছে: প্রধানমন্ত্রী পাবনায় ৩৬ মণ ওজনের স্বপ্নরাজ’র দাম ২০ লাখ ঢাকায় আসছেন বলিউড অভিনেত্রী শিল্পা শেঠি ভাঙ্গুড়া পৌরসভার ২০২২-২০২৩ অর্থবছরের বাজেট ঘোষণা কাতার বিশ্বকাপ জয়ের পরিকল্পনা ব্রাজিল কোচ তিতের

ঈশ্বরদীতে প্রতিবন্ধীকে হত্যার দায়ে তরুণীর যাবজ্জীবন

 

পাবনা (জেলা) প্রতিনিধি

 

 

পাবনার ঈশ্বরদীতে মিঠুন আলী (২৫) নামে শারীরিক প্রতিবন্ধী যুবককে হত্যার দায়ে জবা খাতুন (২৭) নামে এক তরুণীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে, আরও এক বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।আদেশের সময় আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

 

 

সোমবার (২৩ মে) দুপুরে পাবনার বিশেষ জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. আহসান তারেক এ রায় ঘোষণা করেন। নিহত মিঠুন ঈশ্বরদী পৌরসভার শৈলপাড়া মহল্লার আব্দুল মজিদ প্রামানিকের ছেলে।
যাবজ্জীবন সাজপ্রাপ্ত নারী নাটোরের লালপুর উপজেলার পুরাতন ঈশ্বরদীর বিসিক মোড় এলাকার মৃত: সাগর শেখের স্ত্রী। মামলার অপর আসামি সাগর শেখ ২০২০ সালের মাঝামাঝি সময়ে পাবনা জেলা কারাগারে মৃত্যুবরণ করেন।

 

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ২০১৮ সালের ৪ আগস্ট ঈশ্বরদী উপজেলার দাশুড়িয়া এলাকা থেকে অটোরিকশা চালক মিঠুন আলীকে (২৮) দেখা করার কথা বলে মোবাইলে বাড়ী থেকে ডেকে নেয় জবা ও তার স্বামী সাগর। ঈশ্বরদীর বিভিন্ন এলাকায় ঘোরাঘুরির পর রাতে সুগারক্রপ গবেষণা কেন্দ্রের পাশে নির্জন এলাকায় জবার সহযোগিতায় দা দিয়ে কুপিয়ে মিঠুনকে হত্যা করে সাগর। পরে তারা মরদেহ ফেলে অটোরিকশা নিয়ে পালিয়ে যায়।

 

 

ঘটনার ৮ দিন পর মিঠুনের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। মরদেহ উদ্ধারের পরের দিন (১৪ আগস্ট) রাতে নিহতের বাবা আব্দুল মজিদ বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামিদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেন। পরে কল লিস্টের সূত্র ধরে দীর্ঘ তদন্তের পর হত্যাকারী হিসেবে এই দম্পতিকে শনাক্ত করা হয়। পুলিশের তদন্তে জবা ও সাগরের হত্যায় সম্পৃক্ততা প্রমাণিত হয়। পরে ১৬৪ ধারায় স্বীকোরোক্তিমূলক জবানবন্দিতে সাগর ও জবা জানায়, মিঠুন জবাকে বিভিন্ন সময়ে উত্ত্যক্ত ও প্রেমের প্রস্তাব দেওয়ায় পরিকল্পিতভাবে তাকে হত্যা করেছে তারা।

 

 

এরপর ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বর মাসের ১৯ তারিখে স্বামী-স্ত্রীর নামে চার্জশিট দাখিল করা হয়। ১৫ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যদানের ভিত্তিতে হত্যার সাথে সরাসরি জড়িত থাকা প্রমাণ হওয়ায় আদালত আজ তাদের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন। আসামিপক্ষের আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট আব্দুল আহাদ বাবু ও অ্যাডভোকেট সাইদুল চৌধুরী।

 

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট দেওয়ান মজনুল হক জানান, প্রতিবন্ধী যুবকের কোনো গুরুতর অপরাধ না থাকলেও তুচ্ছ কারণে তাকে হত্যা করা হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Categories

Theme Created By SmartiTHost
x