Dhaka , Tuesday, 27 February 2024
www.dainikchalonbilerkotha.com

রাসূল নোমা দরবারের ওরশ শরীফের তারিখ ঘোষণা

 

নিউজ ডেস্ক দৈনিক চলনবিলের কথা

মাদারীপুরের ঐতিহ্যবাহী রাসূল নোমা দরবার শরীফে তিন দিনব্যাপী ওরস শুরুর তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে। এই ওরশ শরীফ অনুষ্ঠিত হবে আগামী মাসের ২০, ২১, ২২ ফেব্রুয়ারী ৭, ৮, ৯ ফাল্গুন সোমবার, মঙ্গলবার ও বুধবার। মাদারীপুর জেলার শিবচর উপজেলার মির্জারচর গ্রামে আনুষ্ঠানিকভাবে ৩৭তম ওরস শরীফ শুরু হবে।

ওরশ শরীফের দিন ভোর থেকেই বিভিন্ন জেলা থেকে শত শত মানুষকে দরবারে ভিড় জমাতে থাকে ওরশ শরীফ প্রাঙ্গণে। প্রতিবছর স্থানীয় ভক্ত ছাড়াও বিভিন্ন জেলা থেকে কয়েক হাজার মানুষ আসেন এই দরবারে।

মানত পরিশোধ, রোগমুক্তি, মনবাসনা পূরণ, আধ্যাত্মিক কামিয়াব লাভসহ নানা কারণে আসেন তারা। নারী, পুরুষ, শিশু, কিশোর, বৃদ্ধ সব শ্রেণীর লোকের সমাগম ঘটে এখানে।

তিন দিনের এই ওরসে প্রতি ওয়াক্তই কয়েক হাজার মানুষকে বিনামূল্যে খাওয়ানো হয়। পীরের দরবারে বসে খান ভক্ত ও দর্শনার্থীরা। ওরস উপলক্ষে দরবারের সামনে তিনদিনের মেলাও বসে।

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, মাদারীপুর জেলার শিবচর উপজেলার মির্জারচর গ্রামের ওলিয়ে কামেল উপমহাদেশের প্রখ্যাত সূফী সাধক শায়েখুত তাসাউফ‌ হযরত নূরী বাবা আলাউদ্দিন শাহ আল-কাদেরী (রাহঃ) একজন ধর্মীয় সাধক ছিলেন। ধর্মপালনের পাশাপাশি তার মধ্যে মানুষের সমস্যা সমাধানের মত আধ্যাত্মিক শক্তি ছিল। এই কেরামতির কথা ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয়রা ভিড় জমাতে থাকেন। ভক্তদের সংখ্যা বাড়লে তার নিজ বাড়িতে তিন দিনব্যাপী ওরস শুরু হয়। বর্তমানে ৩৭তম (প্রতি বছরে একবার) ওরস চলছে এই দরবারে। হযরত নূরী বাবা আলাউদ্দিন শাহ আল-কাদেরী (রাহঃ) এর মাজারের ওরস উপলক্ষে মেলা বসে এবং বর্তমান পীরের আতিথেয়তায় খুশি হন বিভিন্ন জায়গা থেকে আসা ভক্ত ও দর্শনার্থীরা।

রাসূল নোমা দরবার শরীফের গদিনিশিন মাওলানা মোঃ আব্দুর রশিদ নূরী আল-কাদেরী পীর সাহেব দৈনিক চলনবিলের কথা কে জানান, তিন দিনব্যাপী ওরসে ২৭জন বক্তার ধর্মীয় আলোচনাসহ নানা আয়োজন করবেন। যেহেতু দূর-দূরান্ত থেকে ভক্ত ও দর্শনার্থীরা আসে সেজন্য আমরা বিনামূল্যে তাদের জন্য খাবারের ব্যবস্থা করা হয়। যে যার মতো উঠোনে, মাঠে, দরবার শরীফে ও মসজিদের বারান্দায় ঘুমায়। কোন সমস্যা হয় না। মহিলাদের ঘুমানোর জন্য আলাদা ঘরের ব্যবস্থা করা হয়। এত মানুষের সমাগম হওয়ার পরেও কোনো বিশৃঙ্খলা নেই এ দরবারে। এটা শুধু আল্লাহর রহমত থাকলেই সম্ভব।

উক্ত ওরশ মাহফিলে গিলাফ কাফেলা নিয়ে যান রাসূল নোমা দরবার শরীফের পাবনা জেলার অন্যতম খলিফা হযরত মাওলানা মোঃ ইসমাইল আল-কাদেরী পীর সাহেব। প্রতি বছরের ন্যায় এবারও তিনি তার মহল্লা পাবনার ভাঙ্গুড়া পৌরসভার চৌবাড়ীয়া মাষ্টার পাড়া মহল্লা থেকে গিলাফ কাফেলা নিয়ে যাবেন বলে দৈনিক চলনবিলের কথা কে নিশ্চিত করেছেন।

উক্ত মাহফিল ও মোনাজাত পরিচালনা করবেন হযরত নূরী বাবা আলাউদ্দিন শাহ আল-কাদেরী (রাহঃ) এর বড় সাহেব জাদা বর্তমান গদিনিশিন‌ হযরত মাওলানা মোঃ আব্দুর রশিদ নূরী আল-কাদেরী পীর সাহেব।

৩৭তম এবারের ওরশ শরীফের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন রাসূল নোমা দরবার শরীফের পাবনা জেলার অন্যতম খলিফা হযরত মাওলানা মোঃ ইসমাইল আল-কাদেরী পীর সাহেবের ছোট ছেলে পীরজাদা মেহেদী হাসান আল-কাদেরী।

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

রাসূল নোমা দরবারের ওরশ শরীফের তারিখ ঘোষণা

আপডেটের সময় 05:18 pm, Sunday, 22 January 2023

 

নিউজ ডেস্ক দৈনিক চলনবিলের কথা

মাদারীপুরের ঐতিহ্যবাহী রাসূল নোমা দরবার শরীফে তিন দিনব্যাপী ওরস শুরুর তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে। এই ওরশ শরীফ অনুষ্ঠিত হবে আগামী মাসের ২০, ২১, ২২ ফেব্রুয়ারী ৭, ৮, ৯ ফাল্গুন সোমবার, মঙ্গলবার ও বুধবার। মাদারীপুর জেলার শিবচর উপজেলার মির্জারচর গ্রামে আনুষ্ঠানিকভাবে ৩৭তম ওরস শরীফ শুরু হবে।

ওরশ শরীফের দিন ভোর থেকেই বিভিন্ন জেলা থেকে শত শত মানুষকে দরবারে ভিড় জমাতে থাকে ওরশ শরীফ প্রাঙ্গণে। প্রতিবছর স্থানীয় ভক্ত ছাড়াও বিভিন্ন জেলা থেকে কয়েক হাজার মানুষ আসেন এই দরবারে।

মানত পরিশোধ, রোগমুক্তি, মনবাসনা পূরণ, আধ্যাত্মিক কামিয়াব লাভসহ নানা কারণে আসেন তারা। নারী, পুরুষ, শিশু, কিশোর, বৃদ্ধ সব শ্রেণীর লোকের সমাগম ঘটে এখানে।

তিন দিনের এই ওরসে প্রতি ওয়াক্তই কয়েক হাজার মানুষকে বিনামূল্যে খাওয়ানো হয়। পীরের দরবারে বসে খান ভক্ত ও দর্শনার্থীরা। ওরস উপলক্ষে দরবারের সামনে তিনদিনের মেলাও বসে।

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, মাদারীপুর জেলার শিবচর উপজেলার মির্জারচর গ্রামের ওলিয়ে কামেল উপমহাদেশের প্রখ্যাত সূফী সাধক শায়েখুত তাসাউফ‌ হযরত নূরী বাবা আলাউদ্দিন শাহ আল-কাদেরী (রাহঃ) একজন ধর্মীয় সাধক ছিলেন। ধর্মপালনের পাশাপাশি তার মধ্যে মানুষের সমস্যা সমাধানের মত আধ্যাত্মিক শক্তি ছিল। এই কেরামতির কথা ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয়রা ভিড় জমাতে থাকেন। ভক্তদের সংখ্যা বাড়লে তার নিজ বাড়িতে তিন দিনব্যাপী ওরস শুরু হয়। বর্তমানে ৩৭তম (প্রতি বছরে একবার) ওরস চলছে এই দরবারে। হযরত নূরী বাবা আলাউদ্দিন শাহ আল-কাদেরী (রাহঃ) এর মাজারের ওরস উপলক্ষে মেলা বসে এবং বর্তমান পীরের আতিথেয়তায় খুশি হন বিভিন্ন জায়গা থেকে আসা ভক্ত ও দর্শনার্থীরা।

রাসূল নোমা দরবার শরীফের গদিনিশিন মাওলানা মোঃ আব্দুর রশিদ নূরী আল-কাদেরী পীর সাহেব দৈনিক চলনবিলের কথা কে জানান, তিন দিনব্যাপী ওরসে ২৭জন বক্তার ধর্মীয় আলোচনাসহ নানা আয়োজন করবেন। যেহেতু দূর-দূরান্ত থেকে ভক্ত ও দর্শনার্থীরা আসে সেজন্য আমরা বিনামূল্যে তাদের জন্য খাবারের ব্যবস্থা করা হয়। যে যার মতো উঠোনে, মাঠে, দরবার শরীফে ও মসজিদের বারান্দায় ঘুমায়। কোন সমস্যা হয় না। মহিলাদের ঘুমানোর জন্য আলাদা ঘরের ব্যবস্থা করা হয়। এত মানুষের সমাগম হওয়ার পরেও কোনো বিশৃঙ্খলা নেই এ দরবারে। এটা শুধু আল্লাহর রহমত থাকলেই সম্ভব।

উক্ত ওরশ মাহফিলে গিলাফ কাফেলা নিয়ে যান রাসূল নোমা দরবার শরীফের পাবনা জেলার অন্যতম খলিফা হযরত মাওলানা মোঃ ইসমাইল আল-কাদেরী পীর সাহেব। প্রতি বছরের ন্যায় এবারও তিনি তার মহল্লা পাবনার ভাঙ্গুড়া পৌরসভার চৌবাড়ীয়া মাষ্টার পাড়া মহল্লা থেকে গিলাফ কাফেলা নিয়ে যাবেন বলে দৈনিক চলনবিলের কথা কে নিশ্চিত করেছেন।

উক্ত মাহফিল ও মোনাজাত পরিচালনা করবেন হযরত নূরী বাবা আলাউদ্দিন শাহ আল-কাদেরী (রাহঃ) এর বড় সাহেব জাদা বর্তমান গদিনিশিন‌ হযরত মাওলানা মোঃ আব্দুর রশিদ নূরী আল-কাদেরী পীর সাহেব।

৩৭তম এবারের ওরশ শরীফের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন রাসূল নোমা দরবার শরীফের পাবনা জেলার অন্যতম খলিফা হযরত মাওলানা মোঃ ইসমাইল আল-কাদেরী পীর সাহেবের ছোট ছেলে পীরজাদা মেহেদী হাসান আল-কাদেরী।